পরিসংখ্যানে এগিয়ে বেলজিয়াম, ফ্রান্সের আছে বিশ্বকাপের রেকর্ড

আব্দুল জব্বার  (স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট)

 রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে এমন বিশ্বকাপ আগে দেখেনি বিশ্ববাসী। একেতো ইতালি, হল্যান্ড ছাড়া বিশ্বকাপ তারপর আবার ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি ছাড়া সেমিফাইনাল। বড় দল গুলো ছাড়া তাই কেমন যেন পানসে হয়ে গেছে ২১ তম আসর।

যদিও তুলনামূলক ছোট দল গুলো তাদের নিজস্ব যোগ্যতা ও সামর্থের প্রমাণ দিয়েই জায়গা করে নিয়েছে শেষ চারে। এর আগের ২০ আসরে ব্রাজিল, ইতালি, জার্মানি, আর্জেন্টিনা মিলিয়ে কাপ নিয়েছে ১৫ বার। অথচ এবার সেমিতেই নেই তাদের কেউ। যা একটু আশা জিইয়ে রেখেছিলো ব্রাজিল। তারাও কোয়ার্টারে বেলজিয়ামের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে ইতিমধ্যে।

বেলজিয়াম, ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া আর ফ্রান্স এই চার দলের শেষ চারের লড়াই মাঠে গড়াচ্ছে আজ থেকে। বাংলাদেশ সময় রাত বারোটায় প্রথম সেমিতে মুখোমুখি হবে ৯৮ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স এবং এ আসরের দুর্দান্ত গতিময় ফুটবল খেলা ইডেন হ্যাজার্ডের বেলজিয়াম। তারুণ্য নির্ভর ফ্রান্সের সাথে শক্তি আর সামর্থের কতটুকু প্রমাণ দিতে পারে বেলজিয়াম সেটাই দেখার বিষয়।

দুদলের মোট ৭৩ বারের লড়াইয়ে বেলজিয়াম এগিয়ে ৩০ ম্যাচ জিতে। ফ্রান্স ২৪ ম্যাচে জিতে ড্র করেছে ১৯ ম্যাচে।
অবশ্য বিশ্বকাপের মুখোমুখি তে এগিয়ে ফ্রান্স। ১৯৩৮ আর ৮৬ বিশ্বকাপে দুবারই জয়ী হয়েছিল লেস ব্লুসরা। সর্বশেষ ২০১৫ সালে প্যারিসে প্রীতি ম্যাচেও জয়ীদলের নাম বেলজিয়াম। ফেলানীর দুর্দান্ত খেলায় সে ম্যাচে ৪-৩ গোলে জিতে বেলজিয়াম।

এমবাপ্পে, পগবা, গ্রিজম্যান, ভারানে’র মত তুরুণ তারকাদের নিয়ে গড়া ফ্রান্স যদিও এগিয়ে। বেলজিয়ামও কিন্তু ব্রাজিলকে বিদায় করে তাদের গন্তব্য যে বহুদুর সেটা জানিয়ে দিয়েছে। গতিময় খেলা আর লংপাসের জাদু দেখিয়ে এবারের আসরে অন্যরকম খেলা দেখিয়েছে ফেলানি, ভিডোর বেলজিয়াম।

নিজদের ফুটবল ইতিহাসে এখন পর্যন্ত ফাইনাল খেলতে পারেনি বেলজিয়াম। ফ্রান্স কে হারিয়ে এবার কি নতুন ইতিহাস লিখতে পারবে রেড ডেবিলরা? কিংবা ২০ বছরের অপেক্ষার পর ফ্রান্সকি দ্বিতীয় বারের মতো শিরোপা ঘরে তুলে নিবে? সেটা জানতে হলে অবশ্যই চোখ রাখতে হবে আজকের খেলার উপর। যারা নিজেদের সেরাটা খেলতে পারবে তারাই জিততে পারবে। কারণ ফুটবল চরম অনিশ্চয় খেলা। অনেক সময় ভালো খেলেও হারের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়।

ইতিমধ্যে দু দলের খেলোয়াড় জানিয়েছে লড়াই টা মোটেই সহজ হবে না। জিততে হলে দু দলকেই কঠিন লড়াই করতে হবে। কারণ ছাড় দিতে রাজি নয় কোন দলই। তাই যারা আজকের খেলায় নিজদের দিন করে নিতে পারবে তারাই হাসবে শেষ হাসি। জয়-পরাজয় যার হোক না কেন গোটা বিশ্ব একটা জমজমাট লড়াই দেখার অপেক্ষারত। শেষ পর্যন্ত কি হয় সেটা হয়তো ফুটবল ঈশ্বর ভালো জানেন।

বানিমি/ আজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *