রোহিঙ্গা এখন সাংবা‌দিক !

নিজেস্ব প্রতিবেদকঃ
এক রোহিঙ্গা যুবকের সাংবাদিক হওয়া নিয়ে পুরো কক্সবাজার জেলাজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
কক্সবাজারে একটি স্থানীয় দৈনিক পত্রিকা প্রদত্ত ওই যুবকের নামে একটি প্রেস কার্ডও ইস্যু করেছে।
টেকনাফের মুচনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বসবাসকারী মোহাম্মদ সাদেক ওরফে সাইফুল আরকানী     এই সাংবাদি‌কের নাম।
একা‌দিক সু‌ত্রে জানা যায়, টেকনাফের মুচনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আই ব্লকের লিডার হাজ্বী সুলতানের পুত্র সাদেক ওরফে সাইফুল আরকানী।
তাঁর নামে একটি কক্সবাজার’র স্থানীয় পত্রিকা কক্সবাজার ৭১’র প্রদত্ত ইস্যুকৃত একটি পরিচয়পত্র ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।
ওই পরিচয়পত্রে নামের স্থানে মোহাম্মদ সাদেক, পদবী- শিক্ষানবীশ ও রোহিঙ্গা ক্যাম্প উল্লেখ করা হয়। কার্ডের নাম্বার লেখা হয় ০১৫০০১৫।
সু‌ত্রে আরো জানা গেছে, রোহিঙ্গা যুবক সাদেক ওরফে সাইফুল আরকানীর সাথে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের সাথে যোগাযোগ রয়েছে।
এছাড়াও মধ্যপ্রাচ্য ও মালয়েশিয়ার বিভিন্ন গোষ্ঠীর সাথেও তার যোগাযোগ থাকার বিষয়ে জানা গেছে। এছারা আরাকান টাইমস তার একটি ইউটিউব চ্যানেলও রয়েছে বলে জানা যায়।
সেখানে রোহিঙ্গাদের উগ্রবাদ ছড়িয়ে দেয়ার মতো বিভিন্ন ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করে থাকে সে।
এছাড়াও হোয়াটস আপ, ফেসবুকে গ্রুপ বানিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার ও বিভিন্ন দেশের অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করারও সত্যতা মিলেছে তার সঙ্গে কথা বলে।
এদিকে স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক একাত্তর’র সম্পাদক বাংলা‌নিউজ‌মি‌ডিয়া‌কে ব‌লেন, আমি সেখানকার তথ্য জানতে তাকে শিক্ষানবিশ হিসেবে কার্ডটি প্রেরণ করেছি।
এই কথা ছাড়া সেই পত্রিকার সম্পাদক আর কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে রাজী হয়নি। রোহিঙ্গার বাংলাদেশের একটি পত্রিকার সাংবাদিক হওয়ায় গণমাধ্যম সমাজে উঠছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়।
রোহিঙ্গা কাম্পে আশ্রিত একজন বিদেশী নাগরিক কিভাবে এই দেশীয় পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দেয়- তা ই প্রশ্ন সাংবাদিক মহলের।
এদিকে একাধিক গণমাধ্যম কর্মীর সঙ্গে কথা বললে তারা তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘কক্সবাজার ৭১’ পত্রিকা এই কার্ড ইস্যু করে তাহলে তারা দেশদ্রোহীর মত একটি বড় অপরাধ করেছেন।
কারণ একজন অবৈধ রোহিঙ্গা নাগরিক আইনগতভাবে বাংলাদেশে সাংবাদিক হওয়ার যোগ্যতা রাখেনা।
এইচ‌টি

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *