শক্তিশালী ইংল্যান্ডকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বেলজিয়াম!

আব্দুল জব্বার

আদন্যান জেনুজাজের একমাত্র গোলে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বেলজিয়াম। সেই সাথে  বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডকে হারাল বেলজিয়াম।

রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের খেলার পর্দা নামছে আজ থেকে। গ্রুপ পর্বের শেষ খেলায় ইংল্যান্ড মোকাবেলা করে বেলজিয়ামের সাথে। আরেক খেলায় পানামার মুখোমুখি হয় তিউনিসিয়ার। যদিও তাদের ম্যাচটি নিছক নিয়ম রক্ষার। ইতিমধ্যে দু দল বাড়ি যাওয়ার টিকেট হাতে পেয়ে গেছে।

নিজেদের ইতিহাসে কলঙ্ক লাগালো জার্মানি! 

কালিনিংরাড স্টেডিয়ামে তাই আগের পরাজয়ের প্রতিশোধ নেয়ার দারুণ সুযোগও পেয়ে যায় হ্যাজার্ডের বেলজিয়াম। প্রথম রাউন্ডের আগের দুই ম্যাচে দারুণ খেলা ইংল্যান্ড গ্রুপ সেরা হওয়ার লড়াইয়ে নামে হ্যারিকেনের দল। সর্বমোট ২১ খেলায় বেলজিয়াম মাত্র একবার জিতেছে ইংল্যান্ডের সাথে। আর বিশ্বকাপে আগের দুই বার মোকাবেলায় জয়ী দল ইংল্যান্ড।

ম্যাচের শুরু থেকে অবশ্য নিজের দখলে খেলা নিয়ে নেয় ইংল্যান্ড। প্রথমার্ধে কোন দল গোলের দেখা না পেলেও বেশ কয়েকটি আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ করতে দেখা যায়। ইংল্যান্ডের গতিশীল আর লংপাসের খেলার কাছে বেলজিয়াম যেন নিজেদের সেভাবে খুজে পাচ্ছিলো না। তবে ফেলানি, হ্যাজার্ডের দলও ভাল কয়েকটি গোলের করার সুযোগ পেয়েছিলো। যদিওবা ইংল্যান্ডের কড়া ডিফেন্সের কাছে হার মানে তাদের আক্রমণ।

মিরান্ডার ছোঁয়ায়; হেসে-খেলে নক আউটে নেইমারের ব্রাজিল !

নির্ধারিত ৪৫ মিনিটে গোল না হলে দু দল মোটামুটি আনন্দ নিয়েই বিরতিতে যায়। মধ্যবিরতিতে বেলজিয়াম হয়তো বিশ্বকাপের মঞ্চে ইংল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো হারানোর প্রত্যয় নিয়েই নামে। ৫১ মিনিটেই তাদের সেই আশার ফল পেয়ে যায় বেলজিয়াম। টুর্নামেন্টে প্রথন সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড় আদন্যান জানুজাজ অসাধারণ এক গোল করে সবার নজর কেড়ে নেন সবার।

জেনুজাজের গোলে এগিয়ে গিয়ে টিম বেলজিয়াম আরও ধারালো হয়ে ওঠে। মাঠের সব দিয়ে একের পর এক আক্রমণ চালায় তারা ইংল্যান্ড শিবিরে। ১ গোলে পিছিয়ে পড়েও থ্রি লায়ন্সরা তাদের স্বভাবসুলভ জবাব দিতেই থাকে। এ বিশ্বকাপে গোল্ডেন বুট জেতার দাবিদার হ্যারিকেন না থাকায় গোল বঞ্চিত থাকে তার দল।

৬৫ মিনিটে সহজ সুযোগ পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন ইংল্যান্ডের মাঝ মাঠের খেলোয়াড়। দ্বিতীয়ার্ধে বেলজিয়ামকেই মাঠে আধিপত্য বিস্তার করতে দেখা যায়। বল দখলেও এগিয়ে থাকে তারা। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ার লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত গোলের দেখা পায় কিনা ইংল্যান্ড সে অপেক্ষায় থাকে ১৯৬৬ কাপ জয়ী দলের সমর্থকবৃন্দ। সময় অতিবাহিত হওয়ার সাথে সাথে বল গোলের দেখা না পেলে ইংল্যান্ডকে পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়।

অন্যদিকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই নক আউটে যায় বেলজিয়াম। যাদের নক আউটে দেখা হবে এশিয়ার জাপানের সাথে।

কোটি প্রাণে আনন্দ ঢেলে আর্জেন্টিনা নক আউটে!

বানিমি/আজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *